ভবানীপুরে মমতার জয়, আনন্দে মাতলেন দুবরাজপুরের তৃণমূল কর্মীরা
ভবানীপুরে মমতার জয়, আনন্দে মাতলেন দুবরাজপুরের তৃণমূল কর্মীরা

ভবানীপুরে মমতার জয়, আনন্দে মাতলেন দুবরাজপুরের তৃণমূল কর্মীরা

গোটা দেশ যাঁর দিকে তাকিয়ে ছিল সেই ভবানীপুরে জয়ী হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নন্দীগ্রামে হেরে দ্বিতীয়বার পরীক্ষায় বসে বিপুল ব্যবধানে বিধানসভায় ঢোকার টিকিট নিশ্চিত করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ৫৮৮৩২ ভোটে জয়ী হন তৃণমূল নেত্রী। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপির প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল পান ২৬৩২০ ভোট। ২০১১ সালের থেকেও এবার বড় ব্যবধানে জিতলেন মমতা। এই নিয়ে তৃতীয়বার ভবানীপুর থেকে বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এর আগে ২০১১ সালে ভবানীপুর কেন্দ্র থেকে উপনির্বাচনী জয় হয়ে বিধায়ক হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর ২০২১ সালে নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধীকারীর কাছে হারের পর ফের ভবানীপুরে উপনির্বাচনের মাধ্যমে বিধায়ক নির্বাচিত হন তৃণমূল সুপ্রিমো। আর এরই সঙ্গে নিজের মুখ্যমন্ত্রীত্ব নিশ্চিত করলেন তিনি। তাই আজ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ী হওয়ার খুশিতে বীরভূম জেলার দুবরাজপুর শহর তৃণমূল কংগ্রেস কার্যালয়ে আবির খেলায় মাতলেন কর্মী সমর্থকরা। এদিন উপস্থিত ছিলেন দুবরাজপুর পৌরসভার প্রশাসক পীযূষ পাণ্ডে সহ অন্যান্যরা। এদিন পীযূষ পাণ্ডে জানান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভবানীপুরে জিতে দেখিয়ে দিলেন বাঙলার মানুষ মমতাকে চাই। আমরা আশাবাদী ২০২৪ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী হবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

Leave a Reply

Translate »