খোলা হাওয়া শারদ সংখ্যা ১৪২৮ -

সম্পাদকীয় -নাসরিন নাজমা

এক গভীর সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি আমরা ,যাচ্ছে আমাদের দেশ ,সমস্ত পৃথিবী।প্রায় দু’বছর যাবৎ অতিমারির সাথে লড়ছি আমরা ,প্রায় ক্লান্ত বিধস্ত ,যদিও লড়াই এখনও জারি।এই

কবিতা -সব্যসাচী দেব

একুশে এপ্রিল সকালেই ছায়া নামে; চোখের জলের ধারা স্তব্ধ হয়ে থাকে এপ্রিল নিষ্ঠুরতম, মেঘচ্ছায়া কোনো শান্তি আনে না এখন আজ থেকে এ পৃথিবী তবে বুঝি

প্রবন্ধ -কমলেন্দু সরকার

বাংলা সিনেমার নির্বাক যুগ থেকেই হাসি বা মজার ছবি শুরু। হাসি মানেই মজা আর মজাতেই হাসি। শুধু বাংলা কেন, সারা দুনিয়ায় সিনেমার জন্মলগ্ন থেকেই হাসি

কবিতা -স্বপন বন্দ্যোপাধ্যায়

গ্রামদেশে তুলেছি শালপাতা গেঁথেছি কাঠি দিয়ে হয়েছে গােল থালা এবার ভাত বাড়াে একটু ঝােল দাও সবজি টক-ঝাল আহা কি তৃপ্তি! এসেছি গ্রামদেশে তীব্র ডুবে আছি

কবিতা -দেবাশিস চন্দ

গেরস্থালি কলাইয়ের থালায় গরম ভাতের ওম, কুপির দুঃখী আলোয় ঠাকুমার ম্লান মুখের ভাঁজে ভাঁজে বিত্তনিম্নের অমবস্যা, ফিরে যাওয়া বলে কিছু নেই, ভেঙে গেছে কর্ষণসেতু, জলের

প্রবন্ধ-নরেশ মণ্ডল

এই সময় ও আমাদের শিশুরা আমরা বর্তমানে যে সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি তা অত্যন্ত অস্থির। এই সময়ে সুস্থ ভাবে বেঁচে থাকা অসম্ভব। অথচ আমাদের পথ

কবিতা – মনোতোষ আচার্য

আনন্দের পুষ্পবনে এ পৃথিবী আত্মগত বোধির বোধনে নৃত্যরত নিজেকে হারাই বারবার জ্যোৎস্নাভেজা সোঁদা রাস্তায়   মাঝে মাঝে জ্বলে ওঠা দীপের আলোয় দেখি চরাচর যাপন জারণে

প্রবন্ধ – অনিরুদ্ধ  সরকার

বাঙালি মননে আজও নস্টালজিক প্রায় তিনশো বছরের কুমোরটুলি পলাশির যুদ্ধ শেষ হয়েছে। শোভাবাজার রাজবাড়ির রাজা নবকৃষ্ণদেব কলকাতায় দূর্গাপূজা করবেন। সেসময় কুমোরটুলির কুমোরদের দেবীর বাহন সিংহ

গল্প – মৌমিতা ঘোষ

ভদ্দরলোকের ঝগড়া ক্লান্তিতে শরীরটা এলিয়ে দিল সোফায় মৌসুমী। এতক্ষণ একটা মাইন্ডফুলনেসের সেশন করাচ্ছিল ও। তার আগে পুরোদিন অফিসের কাজে ব্যস্ত ছিলো।এখন রাত পৌনে নটা। আর

কবিতাগুচ্ছ – সৈকত ঘোষ

অন্ধের কিবা দিন কিবা রাত অস্তিত্ব কোনও বিচ্ছিন্ন আয়োজন নয় প্রবাদপ্রতিম নৈসর্গিক খোঁজ ১. দস্যুর মতো হেঁটে যায় লাল-নীল জীবনবোধ যতটা দেখানোর ছিলো কিংবা যতটা

গল্প -প্রত্যূষা সরকার

ভাগশেষ “সময়ের মধ্যে তোমাকে খুঁজি অথবা তোমার মধ্যে সময় পরপর শব্দহীন বৃষ্টি   হিজিবিজি শহরে একটানা জ্বর হলে ক্ষয়ে যায় বালিশ, তুলোর চিৎকার শুনতে শুনতে

কবিতা -তনুশ্রী বাগ

মনে করতে পারছি না কিছুই, এমনকি কোথায় রেখেছি দায়িত্বের দিন, মাথা নিচু করে এই প্রান্তদেশে আরও অনেক শব্দের থেকে হারিয়ে ফেলেছি কাকে মুঠো খুলে জলের

কবিতা -বিপাশা ভট্টাচার্য

১. স্থানিক দূরত্ব মাপার, অক্ষাংশ ও দ্রাঘিমার হিসেব ফুরোলে, এই বার তবে নগ্ন হাতে এসে বসো হৃদয়ের কাছে। শুধিয়ো দুটি বেহিসেবি কুশল। দুটি ভাতে ভাত

Translate »